চীনের নতুন অস্ত্র প্রযুক্তি উন্মোচন, হতভম্ব ভারত-যুক্তরাষ্ট্র

ভারত, তাইওয়ান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যে নতুন অস্ত্র প্রযুক্তি উন্মোচন করেছে এশিয়ার পরাশক্তি চীন।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, তিয়ানলেই ৫০০ নামের এই প্রযুক্তিটির মাধ্যমে পূর্বনির্ধারিত লক্ষ্যবস্তুতে ৫০০ কেজি বিস্ফোরক ছোড়া সম্ভব। একই সঙ্গে এর মাধ্যমে আকাশ থেকে ভূমিতে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও চালানো যাবে।

ইংরেজি অনুবাদে প্রযুক্তিটির নাম দাঁড়ায় স্কাই থান্ডার। এটি ছয়টি আলাদা ধরনের বিস্ফোরক বহন করতে সক্ষম এবং সহজেই ভিন্ন ভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালাতে পারে বলে জানিয়েছেন এক সিনিয়র প্রকৌশলী। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম  প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিশ্লেষকদের মতে, লাদাখ, তাইওয়ান, হংকং, দক্ষিণ চীন সমুদ্র ও করোনা ভাইরাস মহামারি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, তাইওয়ান এবং ভারতের সঙ্গে বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যে এই নতুন অস্ত্র প্রযুক্তি উন্মোচন করল বেইজিং।

সোমবার (১৭ আগস্ট) তাইওয়ান সরকার এক ঘোষণার মাধ্যমে জানায়, চীনা গোয়েন্দাদের দ্বীপটিতে প্রবেশ ঠেকাতে নতুন আগতদের বিষয়ে কড়াকড়ি আরোপ করা হবে। এ দিকে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৬৬টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কেনার জন্য ছয়শ’ কোটি মার্কিন ডলারের একটি চূড়ান্ত করেছে তাইওয়ান। মূলত এই চুক্তিকেই উসকানি বলে আখ্যা দেয় চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ।

এ দিকে বিরোধপূর্ণ দক্ষিণ চীন সীমান্তে গত সপ্তাহে মহড়া চালিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া তাইওয়ান প্রণালির উত্তর ও দক্ষিণ অংশে গোলাবর্ষণের মহড়া চালিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। চীনা সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এসব মহড়াকে সম্পূর্ণ উসকানি মূলক বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। বেইজিং বলছে, এতে তাইওয়ানের স্বাধীনতাকামীদের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

অপর দিকে সিনহুয়ার সম্পাদকীয় এবং দেশটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তেজনা নিরসনের তাগিদ দিয়েছেন। তবে সম্পর্কে টানাপড়েন তৈরি হওয়ার জন্য ওয়াশিংটনকেই দায়ী করছেন তারা।