চীনের ওপর মাস্তানি করলে ‘মাথা ফাটানোর’ হুমকি জিনপিংয়ের

বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলো যদি চীনের ওপর মাস্তানি করার বা প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করে তাহলে তাদের ‘মাথা ফাটিয়ে’ দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির শতবর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার রাজধানী বেইজিংয়ের ঐতিহাসিক তিয়ানআনমেন স্কয়ারে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে এ কথা বলেন তিনি। এ সময়

সেখানে ৭০ হাজারের বেশি মানুষ উপস্থিত ছিলেন। শতবর্ষ পূর্তির ওই অনুষ্ঠান টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছিল। শর্তবর্ষ পূর্তির অনুষ্ঠানে জিনপিং চীনের বিখ্যাত নেতা মাও সে তুংয়ের মতো ধূসর রঙের স্যুট পরে এসেছিলেন।

ভাষণে তিনি হংকংয়ে সরকার বিরোধী প্রতিবাদ নিয়ন্ত্রণে বিষয়টি উল্লেখ করেন।সেই সঙ্গে এখনও স্বায়ত্তশাসন চলা তাইওয়ানকেও খুব তাড়াতাড়িই চীনের নিয়ন্ত্রণে আনা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

ভাষণে তিনি চীনের কমিউনিস্ট পার্টির বিভিন্ন অবদান তুলে ধরে বলেন, গৃহযুদ্ধের পর ১৯৪৯ সালে কমিউনিস্ট পার্টি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই চীনের উন্নতি শুরু হয়েছে। চীন তার সম্মান ফিরে পেয়ে সমগ্র বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর দেশ হয়েছে বলে জানান জিনপিং। জিনপিং বলেন আমরা অতীতে কোনো দেশের ওপর দাসত্ব করতে বা অত্যাচার করতে চাইনি বা করিনি, এখন করি না এবং ভবিষ্যতেও করব না।

তবে চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কেউ নাক গলালে তাদের পরিণতি ভালো হবে বলে হুশিয়ার করে জিনপিং বলেন, চীনের ওপর কাউকে মাস্তানি করতে দেওয়া হবে না। কেউ যদি সেই চেষ্টাও করে, তাহলে ১৪০ কোটি জনসংখ্যার দেশের স্টিলের মহা প্রাচীরের সামনে মাথা ফাটিয়ে রক্তারক্তি কাণ্ড হয়ে যাবে।

সমবেত জনতা তুমুল করতালির মাধ্যমে জিনপিংয়ের এই বক্তব্যকে স্বাগত জানান। ১৯২১ সালের ১ জুলাই ১০০ বছর আগে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি (সিসিপি) প্রতিষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ গৃহযুদ্ধের পর ১৯৪৯ সালে দলটি চীনের ক্ষমতায় আসে। এরপর ৭২ বছর ধরে সিসিপি দেশটির শাসন ক্ষমতায় আছে।