চীনকে রুখতে ‘জোশ’ চান ভারতীয় সেনাপ্রধান

এ সময় ভারতীয় সেনাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, পুরো দেশ এখন সেনা জওয়ানদের দিকেই তাকিয়ে আছে। চীনকে রুখতে এখন একই সঙ্গে ‘জোশ’ রাখতে হবে, পরীক্ষা দিতে হবে ধৈর্যের।

গত তিন মাসের বেশি সময় ধরে অস্থির ভারত-চীন সীমান্ত সীমান্ত। কয়েক দিন ধরে লাদাখ সীমান্তে স্নায়ুর চাপ আবারো বেড়েছে। আপাতত স্থিতাবস্থা থাকলেও চলছে পারস্পরিক চাপ বাড়ানোর খেলা।

এই পরিস্থিতিতেই এলাকা পরিদর্শনের জন্যই দু’দিন ধরে লাদাখে রয়েছেন এমএম নরবনে। সেনার শীর্ষকর্তাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকও করেছেন তিনি।

এদিন সীমান্তের কাছাকাছি প্রহরারত ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। তাদের উজ্জীবিত করতে গত কয়েক দিনের ঘটনা পরম্পরায় ভারতীয় সেনার ভূমিকার প্রশংসা করেন এমএম নরবনে। মনে করিয়ে দেন, এখন সময় নিজকে উজাড় করে দিয়ে ধৈর্য ও আত্মনিয়ন্ত্রণের সঙ্গে কাজ করা। উত্তেজনার পারদটা বুঝিয়ে দিতে, নরবনে বলেন, আমাদের দিকেই তাকিয়ে রয়েছে গোটা দেশ।

 

ভারতের সংবাদ সংস্থা কে সেনাপ্রধান বলেন, পরিস্থিতি সামান্য উদ্বেগজনক ছিল। এই কারণেই কারণেই আমরা সুরক্ষার কথা মাথা রেখে আগেভাগে ব্যবস্থা নিয়েছি। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে সীমান্তে।

প্রসঙ্গত, এদিন লাদাখে সীমান্ত সংঘাতের জন্য চিনের দিকে আঙুল তুলেছেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়তও। ভারত আমেরিকা শীর্ষ বৈঠক থেকে তিনি বলেন, ১৯৯৩ সালেই সীমান্ত সমঝোতা হয়ে গিয়েছিল। তার পরেও বারবার সীমান্তে চিনা আগ্রাসন দেখা গিয়েছে। যে কোনও ধরনের আক্রমণ রুখতে ভারত সক্ষম।

সূত্র: নিউজ ১৮