চারদিক থেকে আসছে চাপ, ফের বৈঠকে মোদী

ভারতের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে ধারাবাহিকভাবে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বুধবার (২৯ জুলাই) ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পরে বৃহস্পতিবারও (৩০ জুলাই) লকডাউন-উত্তর আর্থিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছেন তিনি।

এমন পরিস্থিতিতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী এবং পি চিদম্বরম মোদী সরকারকে দেশের অর্থনীতি নিয়ে আক্রমণ করেছেন।

রাহুলের অভিযোগ, মোদী দেশ চালাচ্ছেন। প্রথমে নোট বাতিল, তারপরে জিএসটি, করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থতার ধাক্কায় রোজগার ও অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। তিনি আরও বলেন, মোদীর পুঁজিবাদী মিডিয়া মায়াজাল তৈরি করেছে। কিন্তু খুব শীঘ্রই ভ্রম ভেঙে যাবে।

রাহুলের তোপের পরে সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম প্রশ্ন তোলেন, দেশের গভীর আর্থিক সঙ্কটের কথা বিজেপি সরকার কবে স্বীকার করবে? প্রধানমন্ত্রী কবে নিজের ও দেশের অর্থনীতির ম্যানেজারদের ব্যর্থতা স্বীকার করবেন?

চিদম্বরমের অভিযোগ, দেশের একটি প্রধান টেলিকম সংস্থা ভেঙে পড়ার মুখে। টেলিকম শিল্পকে বাঁচানোর পরিকল্পনাই সরকারের নেই। বিমান শিল্প বিরাট ক্ষতির মুখে পড়েছে। উদ্ধারের পরিকল্পনা না থাকলে সকলের অবস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার মতো হবে।

তার মতে, গত ১২ মাসে লক্ষ লক্ষ মানুষ কাজ হারিয়েছেন। টেলিকম ও বিমান শিল্প ভেঙে পড়লে আরও বহু মানুষ কাজ হারাবেন। বুধবারের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ব্যাংক কর্মকর্তাদের ঋণ বিলি বাড়ানোয় জোর দিয়েছিলেন। বৃহস্পতিবারের বৈঠক নিয়ে এখন পর্যন্ত জানানো হয়নি।