চামড়া মাত্র ১০০ টাকা, লোকসানে ব্যবসায়ীরা

সারাদিন পাড়ামহল্লায় ঘুরে ঘুরে সরকার নির্ধারিত দামের অর্ধেকে চামড়া কিনেও লোকসানে রয়েছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। এতে চরম হতাশ তা স্পষ্টই ফুটে উঠেছে মৌসুমী ব্যবসায়ীদের কন্ঠে।

শনিবার রাজশাহীর শালবাগান ও বেলপুকুর আড়তে চামড়া নিয়ে আসেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। খুচরা ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন, ট্যানারি মালিকদের থেকে পাওনা না পাওয়ায় আর্থিক সংকট ও করোনা পরিস্থিতির কারণে চামড়ার দাম কম।

প্রতিপিস গরুর চামড়া সর্বনিম্ন ১০০’ থেকে সর্বোচ্চ ৪০০’ টাকায় বিক্রি হয় এখানে। এতে ক্রয়মূল্যই উঠেনি অনেক ব্যবসায়ীরদের।

এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘২ লাখ টাকার চামড়া কিনেছি এখন কত টাকা লস যাবে বুঝতে পারছি না।’ আরেকজন বলেন, ‘গরুর দাম আছে, দুধের দাম আছে চামড়ার দাম নেই কেন?’

একই অবস্থা ময়মনসিংহের চামড়ার বাজারেও। সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে কমমূল্যে চামড়া কিনেও আড়তে লোকসানে বিক্রি করতে হয়েছে। এতে পথে বসার উপক্রম মৌসুমী ব্যবসায়ীদের।