চরিত্র হননের চেষ্টায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব

মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের সহযোগী শিপ্রা দেবনাথ বলেছেন, ‘বিভিন্ন ছবি ও ভিডিওর মাধ্যমে যারা আমার ব্যক্তি জীবনকে অসহনীয় করেছেন, তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আমি যথাযথ ব্যবস্থা নেব।

আমি মনে করি, আমার চরিত্র হননের চেষ্টা এ দেশের বাইরে কাজ করা প্রত্যেক নারীর প্রতি অপমানজনক আচরণ।’ সোমবার টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শ্রিপা এসব কথা বলেন।

শিপ্রা দেবনাথ বলেন, ৩১ জুলাই রাতে সিনহা রাশেদকে ঠাণ্ডা মাথায় গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সিনহা তার কর্মজীবনে কতটা চৌকস ছিলেন, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এসএসএফের মতো একটি সংস্থায় দীর্ঘদিন তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন।

শিপ্রা বলেন, সিনহাকে হত্যার পর রাত সাড়ে ৪টার দিকে তাকে রামু থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর পুলিশ ভ্যানে তোলা হয়। সেখানে জানতে পারি আমি নাকি মাদক মামলার আসামি। আমাদের কটেজ থেকে পুলিশ দুটি মনিটর, ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, ক্যামেরা, লেন্স, তিনটি হার্ডড্রাইভ এবং আমাদের ফোন নিয়ে যায়। জব্দ তালিকায় যার কোনোটির উল্লেখ নেই।

শিপ্রা আরও বলেন, সিনহাকে হত্যার পর আমাকে ও আমার সহকর্মী সিফাতকে সামাজিকভাবে হেনস্তা করা হয়েছে। পারসোনাল প্রোফাইল থেকে ও ডিভাইস থেকে ছবি চুরি করে ফটোশপে এডিট করে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। আমার নামে খোলা হয়েছে ফেক ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম আইডি।