গাড়ি ফেরত চাওয়ায় ঠিকাদারকে ‘মৃত্যুর হুমকি’ যুবলীগ ক্যাডার বাবরের

চট্টগ্রামে ‘কথিত’ যুবলীগ নেতা ও সন্ত্রাসী হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের বিরুদ্ধে রেল ঠিকাদারের এক কোটি ২৬ লাখ টাকার প্রাডো গাড়ি আত্মসাতের অভিযোগ ওঠেছে।

কয়েকদিন ব্যবহারের জন্য নেওয়া গাড়ি ও ব্যবসায়িক লেনদেনের পাওনা কোটি টাকা ফেরত চাওয়ায় ঠিকাদারকে মৃত্যুর হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসী বাবর। এছাড়া বিভিন্ন হুমকি ধমকি দিচ্ছে তার শিষ্যরা।

ফলে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সদরঘাট থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন মোহাম্মদ শাহ আলম নামের ওই ঠিকাদার।

ঠিকাদার মোহাম্মদ শাহ আলম জিডিতে উল্লেখ করেন, ব্যবসায়িক কারণে হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের সাথে আমার পরিচয় হয়। সে সুবাধে আর্থিক লেনদেন হয় এবং আমার ব্যবহারের একটি গাড়ি কয়েকদিনের জন্য নেয় বাবর। পরবর্তীতে কারাগারে অমিত মুহুরী নিহত হওয়ার পর বাবর দেশের বাহিরে চলে যায়। বর্তমানে দুবাই অবস্থান করছেন। আমি পাওনা টাকা ও গাড়ি ফেরৎ চাইলে সে বিভিন্ন রকম হুমকি-ধমকি দিতে থাকে। গত ৩/৪ দিন ধরে কয়েকটি ফেসবুক আইডি থেকে অশ্লীল, কুরুচিপূর্ণ, মিথ্যা, বানোয়াট, ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিভিন্ন পোস্ট দিচ্ছে। যা আমাকে চরম মানহানি ও সামাজিকভাবে হেয় করা হয়েছে।
গত ২২ আগস্ট বিকাল ৫টায় আমার বাসভবনে কিছু অপরিচিত লোক এসে আমাকে হুমকি ধমকি দিয়ে বলে, বাবর ভাইয়ের সাথে বিরোধ মীমাংসা করে ফেলতে, না হলে অনেক বড় ক্ষতি হবে।

জিডিতে আরও উল্লেখ করা হয়, উল্লেখিত ব্যক্তিরা ফেসবুকে মিথ্যা, অশ্লীল, বিকৃত কুরুচিপূর্ণ পোস্ট আপলোড করতে থাকায় আমি মানসিকভাবে চরম বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছি। একই সঙ্গে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।

এছাড়া হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের ইশারায় ওই লোকগুলো বিভিন্ন অখ্যাত অনলাইন পোর্টালে মানহানিকর সংবাদ প্রচার করছে, যা প্রচলিত আইন পরিপন্থী। এতে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতা ও প্রাণনাশের আশঙ্কায় ভুগছে। বিষয়টি আমলে নিয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি বলে মনে করি।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ফেসবুকের ওই আইডিগুলো পরিচালনা করেন হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর, মাহমুদুল করিম, জে এইচ হামিদ হোসেন, লিটন চৌধুরী রিংকু, আনোয়ার পলাশ, জোবায়ের আলম আশিক, মনির ইসলাম, সাইদ আল জাবির, মো. সাইফুল ইসলাম রাজ, সাহিল মিহির ইমন।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সদরঘাট থানার ওসি এসএম ফজলুর রহমান ফারুকী বলেন, শাহ আলম নামের একজন ডকুমেন্টারি একটা জিডি করেছেন। তদন্ত অফিসার সেটা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবে।

যুবলীগ ক্যাডার হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের বিরুদ্ধে রেলওয়ের সিআরবি ডাবল মার্ডার, সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আশিক হত্যা, রাউজানের আকবর-মুরাদ হত্যা মামলা, আজাদ হত্যা মামলা, শহীদ মির্জা লেনে ডাবল মার্ডার, তামাকুমুণ্ডি লেনে রাসেল হত্যা, এমইএস কলেজের ফরিদ হত্যা মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্র: চট্টগ্রাম প্রতিদিন