খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত কেন, জানালেন কাদের

মানবিক দিক বিবেচনা করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা আবারও ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও সায় আছে বলে জানান তিনি।

শুক্রবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রীর চিকিৎসার দিক বিবেচনা করে মানবিক কারণে মুক্তি দেয়া হয়েছিল ছয় মাসের জন্য। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চিকিৎসা ভালোভাবে করা যায়নি। সেটা বিবেচনা করে তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়েছে। এটায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি আছে। এখানে কোনো রাজনৈতিক চাপের বিষয় নেই। একেবারে মানবিক কারণে সেই সিদ্ধান্ত।

দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের দণ্ড নিয়ে কারাগারে ছিলেন খালেদা জিয়া। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি তার কারাবন্দি জীবন শুরু। দুই বছরের বেশি সময় সাজা খেটে পরিবারের আবেদনে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত ২৫ মার্চ খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে নির্বাহী আদেশে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার।

ওই মুক্তির মেয়াদ ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়ার কথা ছিল। তার আগেই পরিবারের পক্ষ থেকে আবারও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়।

এর ধারাবাহিকতায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বৃহস্পতিবার জানান, খালেদা জিয়ার দণ্ডের কার্যকারিতা আরও ছয় মাসের জন্য স্থগিত রাখার বিষয়ে সম্মতিসূচক মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়।