কৌতুক অভিনেতা’কে হত্যার কথা স্বীকার করলো তালেবান

খাসা জওয়ান নামে পরিচিত ‘কৌতুক অভিনেতা’ ওরফে আফগান পুলিশের এক কর্মকর্তাকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে তালেবান। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) গোষ্ঠীটি এ কথা স্বীকার করে বলে খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফজল মোহাম্মদ নামে নিহত ওই পুলিশ কর্মকর্তা অনলাইনে হাস্যরসাত্মক নানান ভিডিও পোস্ট করার জন্য আফগানদের কাছে ‘কৌতুক অভিনেতা’ হিসেবেই বেশি পরিচিতি অর্জন করেন। তার আরেক নাম খাসা জওয়ান।

তিনি কান্দাহার প্রদেশে আফগান পুলিশে কর্মরত ছিলেন। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে বাড়ি ফেরার পর তাকে তালেবানরা তুলে নিয়ে যায় বলে জানান ফজলের এক সহকর্মী। তবে শুরুতে সেই কথা অস্বীকার করেছে তালেবানরা। কিন্তু গত সপ্তাহে এ সংক্রান্ত একাধিক ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে হত্যার কথা স্বীকার করে গোষ্ঠীটি।

ভিডিওতে দেখা যায়, দুই হাত পিছমোড়া করে বাঁধা অবস্থায় ফজল একটি গাড়িতে বসে আছেন। তার দুই পাশে লোক বসা এবং তারা তাকে বারবার চড় মারছিল। অন্য একটি ভিডিওতে তার মরদেহের সত্যতা মেলে।

তবে ফজলকে ‘কৌতুক অভিনেতা’ বলে মানতে রাজি নয় তালেবানরা। গোষ্ঠীটির মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বলেন, তিনি কৌতুক অভিনেতা নয়, বরং আমাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। আটক করার পর পালানোর চেষ্টা করলে আমাদের বন্দুকধারীরা তাকে গুলি করে।

তিনি আরও বলেন, ফজল আফগান পুলিশের একজন সক্রিয় সদস্য। অসংখ্য মানুষের মৃত্যুর জন্য এই লোকটি দায়ী। ফজলের সহকর্মী পুলিশ কমান্ডার সাইলাব বলেন, সে (ফজল) কখনো যুদ্ধক্ষেত্রে মোতায়েন ছিল না। তিনি মূলত বিভিন্ন তল্লাশিচৌকিতে পুলিশ সদস্যদের আনন্দ দিতেন।

এদিকে, এ হত্যাকাণ্ডের খবর প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। নেটিজেনরা তালেবানদের পৃথিবীর সবচেয়ে নিষ্ঠুর মানুষ বলে আখ্যা দিচ্ছেন।