কুষ্টিয়া সীমান্তে নিহত বাংলাদেশির লাশ ১৫ দিন পর ফেরত দিল বিএসএফ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তের ওপার ভারত ভূ-খন্ডে বিএসএফ’র গুলিতে আবুল কাশেম (৩৫) নামে বাংলাদেশি এক চোরাকারবারী নিহত হওয়ার ১৫দিন পর তার লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে নিহতের লাশ ফেরত দেওয়া হয়।

চল্লিশপাড়া সীমান্তের ৮৫/১০(এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন নোম্যান্স ল্যান্ডে অনুষ্ঠিত পতাকা বৈঠকের মাধ্যমের নিহত বাংলাদেশির লাশ ফেরত দেওয়া হয়। পতাকা বৈঠকে বিএসএফ’র পক্ষে নেতৃত্ব দেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার জলঙ্গী থানার ১৪১ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ জলঙ্গী বিএসএফ ক্যাম্পের অধিনায়ক এসি বলরাম সিং।

এসময় জলঙ্গী থানা পুলিশের পক্ষে এসআই খুরশিদ আলম উপস্থিত ছিলেন। বিজিবি’র পক্ষে নেতৃত্ব দেন ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ মহিষকুন্ডি কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার দেলোয়ার হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর থানার ওসি নিশিকান্ত। পরে নিহতের পরিবারের পক্ষে ছোট ভাই মিঠু লাশ বুঝে নেন।

উল্লেখ্য, ১৪ আগষ্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে আবুল কাশেম দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চল্লিশপাড়া সীমান্তের ওপার ভারত ভূ-খন্ডে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ করলে জলঙ্গী থানার ১৩নং মাজদিয়াড় নামক এলাকায় বিএসএফ তাকে গুলি করে হত্যা করে। নিহত কাশেম দৌলতপুর উপজেলার চল্লিশপাড়া সীমান্ত এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে।