কাশ্মীর ইস্যুতে সৌদি নেতৃত্বাধীন ওআইসির নীরবতার সমালোচনা করল পাকিস্তান

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু কাশ্মীরের মুসলমানদের ওপর যে ‘দমন-পীড়ন’ চলছে সে ব্যাপারে যদি সৌদি নেতৃত্বাধীন ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি বৈঠক আহবান করতে ব্যর্থ হয় তাহলে পাকিস্তান আলাদা বৈঠক আহবান করবে।

সে বৈঠকে রিয়াদ থাকুক বা না থাকুক পাকিস্তান নিজের মতো করে মুসলিম দেশগুলোর বৈঠক ডাকবে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহ মেহমুদ কোরেশি একথা বলেছেন। তিনি ওআইসি’র পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক ডাকার জন্য সৌদি আরবের প্রতি আহ্বান জানান।

কোরেশি বলেন, “সৌদি আরব যদি তাদের ভূমিকা পালন না করতে চায় তাহলে আমি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেবো তাতে সৌদি আরব থাকুক বা না থাকুক।”

পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, “কাশ্মীর ইস্যু এবং সেখানকার মুসলমানদের সমর্থনে পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে মুসলিম দেশগুলোর সহযোগিতায় একটি সম্মেলন ডাকার কথা বলতে বাধ্য হবে ইসলামাবাদ।”

শাহ মেহমুদ কোরেশির এই বক্তব্যের মধ্যদিয়ে পাকিস্তান ও সৌদি আরবের মধ্যকার সম্পর্কের অবনতি হয়েছে কিনা তা পরিষ্কার না হলেও এটি বোঝা যাচ্ছে যে, পাকিস্তানের সম্ভাব্য এই উদ্যোগ সৌদি আরবের জন্য নতুন এক পরীক্ষা।

পাশাপাশি ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সৌদি আরবের উষ্ণ সম্পর্কে যেমন মুসলিম বিশ্বের বহু দেশ হতাশ তেমনি ভারতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কারণে পাকিস্তান সৌদি আরবের ওপরে হতাশ ও ক্ষুব্ধ।