কাবুল নিয়ে ‘বাস্তববাদী’ আফগান প্রতিবেশীরা: কুরেশি

আফগানিস্তানের প্রতিবেশীরা কাবুলের পরিস্থিতি সম্পর্কে ‘পুরোপুরি সচেতন’ এবং সমস্যাটির প্রতি তাদের দৃষ্টিভঙ্গি ‘বাস্তবসম্মত’। তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান এবং ইরান সফর শেষ করে দেশে ফেরার পর শনিবার এই মন্তব্য করেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি।

শনিবার জারি করা এক বিবৃতিতে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফগানিস্তানকে ঘিরে আঞ্চলিক নেতৃত্বের সাথে সংলাপ করার পর তার ফলাফল সম্পর্কে বিস্তারিত জানান। তিনি বলেন, আমার চার জাতির সফরে আফগানিস্তান সম্পর্কে তাদের মতামত সম্পর্কে জানার সুযোগ হয়েছিল। ‘আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতা থাকলে পুরো অঞ্চল উপকৃত হবে কুরেশি বলেন, তালেবান নেতৃত্বও সব দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তিনি আরও বলেন, ‘আফগানিস্তানের জনগণ কয়েক দশক ধরে যুদ্ধ মোকাবেলা করে আসছে এবং শান্তি চায়। অতীতের ভুলের জন্য তারা ভুগছে। আমাদের অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিতে হবে যাতে সেগুলোর পুনরাবৃত্তি না হয়।

আফগানিস্তান থেকে যদি কোনো ইতিবাচক বার্তা আসে, তা উৎসাহিত করা উচিত মন্তব্য করে কুরেশি বলেন, আফগানিস্তানকে বিচ্ছিন্ন করা সবার জন্য ক্ষতিকর হবে। তিনি বলেন, বিশ্ব পাকিস্তানের প্রতি ‘আস্থা প্রকাশ করছে’ আফগানিস্তানে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে দেশটির ভূমিকাও প্রশংসিত হয়েছে। তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান আফগানিস্তান থেকে বেশ কয়েকটি দেশের কূটনৈতিক কর্মীদের সরিয়ে নিতে সাহায্য করছে। ‘পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

প্রতিবেশী ভারত সম্পর্কে মন্তব্য করে কুরেশি বলেন যে, তারা এই অঞ্চলের ‘লুণ্ঠনকারীদের’ তালিকার শীর্ষে রয়েছে। তিনি বলেন, ভারত পাকিস্তানের ক্ষতি করার জন্য ‘নেতিবাচক কর্মকাণ্ড’ চালাচ্ছে এবং এই অঞ্চলের শান্তি নষ্ট করতে আগ্রহী। মন্ত্রী আফগানিস্তানের সাথে সীমান্ত বন্ধ থাকার কথা অস্বীকার করে বলেন, শুধুমাত্র ‘সীমান্ত ব্যবস্থাপনা ব্যবস্থা’ নেয়া হয়েছে।

সূত্র : ডন।