কলারোয়ায় ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ছাত্রীর ধর্ষণ মামলা

জেলার কলারোয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের যৌন লালসার শিকার হয়েছেন এসএসসি পরীক্ষার্থী এক ছাত্রী। তিনি কলারোয়া থানায় এ অভিযোগে ১৮ আগস্ট একটি মামলা করেছেন।

অভিযোগে ওই ছাত্রী উল্লেখ করেন, গত ২০১৭ সাল থেকে টানা চার বছর তাকে ধর্ষণ করেছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ মেহেদি হাসান নাইস। ২০১৭ সালে বাড়িতে তার মায়ের অনুপস্থিতির সুযোগে নাইস তাকে প্রথমবার ধর্ষণ করেন।

এর আগে তিনি তাকে বিয়ে করবেন বলেও প্রস্তাব দেন। ছাত্রীটি তার অভিযোগে আরও বলেন, গত ৩ জুলাই নাইস ফের তাকে ধর্ষণ করেন। সেদিন তিনি তার সঙ্গে অসদাচরণও করেন।

এতে তার ধারণা হয় নাইস তাকে বিয়ে করবে না এবং তিনি তার সঙ্গে প্রতারণা করে চলেছেন। এদিকে এ বিষয়ে জানতে এবং বিয়ের দাবি নিয়ে ছাত্রীটির পরিবারের লোকজন নাইসের বাড়িতে গেলে তাদের তাড়িয়ে দেয়া হয়।

এর আগে তারা জানতে পারেন নাইস মোটা অঙ্কের টাকা যৌতুক নিয়ে অন্যত্র বিয়ে করেছেন।

এদিকে থানায় ধর্ষণ মামলা দেয়ায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মেহেদি হাসান নাইস তা প্রতিহত করতে সাতক্ষীরায় এক সংবাদ সম্মেলন করেন। এতে তিনি লিখিতভাবে দাবি করেন তিনি নির্দোষ।

তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংস করার লক্ষ্যে উদ্দেশ্যমূলকভাবে এসব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।