কপাল পুড়লো ভারতের, তলে তলে চীন-আমেরিকার বাণিজ্য সম্পর্ক

ভারতকে অনেকটা পরামর্শ দিয়েই টিকটক বন্ধ করায় আমেরিকা। টিকটককে ভারত নিষিদ্ধ ঘোষণার পর থেকে আমেরিকা এই সিদ্ধান্তের প্রবল প্রশংসাও করে। মোদী সরকারের প্রশংসায় মার্কিন কংগ্রেস একটি রিপোর্টও দেয় ট্রাম্পকে। কিন্তু সেই টিকটক নিয়েই উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

খবর অনুযায়ী,যে টিকটককে মার্কিন নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বড় ‘আশঙ্কা’ বলে মনে করা হচ্ছে, সেই টিকটকের সঙ্গে চুক্তি করতে চলেছে মার্কিন সংস্থা টুইটার। জানা গিয়েছে, চীনা টিকটকের মার্কিন অপারেশনের সঙ্গে মার্কিন সংস্থা টুইটারের প্রাথমকি কথা হয়েছে। তাতে যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের যে অংশ রয়েছে, তা সম্ভবত টুইটারের সঙ্গে আগামীদিনে একসাথে হয়ে কাজ করবে।

এদিকে টিকটকের সঙ্গে কাজ করার জন্য মার্কিন সংস্থা মাইক্রোসফট বহুদিন ধরেই চেষ্টা করে চলেছে। বেইজিংয়ের সংস্থা বাইট ডান্সের আওতায় থাকা টিকটক নিয়ে মাইক্রোসফট সিইও নাদেলার সঙ্গে ট্রাম্পের কথাও হয়েছে বলে খবর।

তবে সেই আলোচনার মাঝখান দিয়ে টুইটার নিজের ভাগ তুলে নিয়ে সাফল্য পেয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। মূলত, আমেরিকার চক্ষুশূল চীন হলেও, আমেরিকার বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে চীনা সংস্থার এমন বাণিজ্যিক সম্পর্ক ভারতসহ অন্য দেশগুলোর জন্য চিন্তার কারণ।

টিকটককে যুক্তরাষ্ট্রে নিষেধাজ্ঞার আওতায় রাখার বিষয়ে আইনের দ্বারস্থ হতে চলেছে সংস্থাটি। সেক্ষেত্রে ট্রাম্পের নির্দেশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাইছে টিকটক।