এবার নারী স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে ফেরার আহ্বান জানালো তালেবান

নারী স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে ফিরতে আহ্বান জানিয়েছে তালেবানরা। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এ আহ্বান জানান। খবর রয়টার্সের।

এর আগে গত ২৪ আগস্ট তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এক সংবাদ সম্মেলনে আফগানিস্তানের সরকারি কর্মজীবী নারীদের ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, নারীদের কর্মক্ষেত্রে ফেরানোর প্রক্রিয়া সম্পন্ন না হওয়ায় সাময়িকভাবে তাদের ঘরে থাকতে বলা হচ্ছে।

অবশ্য তিনি এটিও বলেছিলেন, নারীদের কর্মস্থলে যোগদানে স্থায়ীভাবে বাধা দেওয়া হবে না। তারা যাতে কাজে ফিরতে পারেন, সেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ। জাবিউল্লাহ মুজাহিদের সেই সংবাদ সম্মেলনের ৪ দিনের মধ্যেই নারী স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে ফেরার আহ্বান জানাল আফগানিস্তানের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

১৫ আগস্ট অনেকটা রক্তপাতহীন লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে কাবুল দখলে নেয় তালেবান। এরপর থেকে চরম বিশৃঙ্খলা তৈরি হয় দেশটিতে। ভয় আর আতঙ্কে হাজার হাজার নারী শিশুসহ আফগান নাগরিক দেশ ছাড়তে ভিড় করেন বিমানবন্দরে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সেখান থেকে লোকজন সরিয়ে নিয়েছে ফ্রান্স, জার্মানি, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশ। তবে এখনও প্রত্যাহার কাজ চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যরা।

তবে আফগানিস্তানের ভঙ্গুর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে ইতোমধ্যেই অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। এমতাবস্থায় কর্মী সংকটে থাকা এই খাতে প্রাণ ফেরাতে নিজেদের অবস্থান থেকে সরে এসে নারীদের কাজে ফিরতে বললো তালেবান। তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এক বিবৃতিতে বলেন, ইসলামী আমিরাতের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কেন্দ্র ও প্রদেশের সব নারী কর্মীদের তাদের কর্মক্ষেত্রে নিয়মিত উপস্থিত থাকার পরামর্শ দিচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা ইসলামী আমিরাতের কাছ থেকে তাদের দায়িত্ব পালনে কোনও বাধার সম্মুখীন হবে না। গত ১৫ আগস্ট তালেবানরা কাবুলে প্রবেশ করার পর থেকে মৌলিক পরিসেবাগুলো পুনঃপ্রতিষ্ঠার চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। তবে পশ্চিমা সমর্থিত পূর্ববর্তী আফগান সরকারের সঙ্গে যুক্ত অনেক বিশেষজ্ঞ দেশ থেকে পালিয়ে যাচ্ছেন বা প্রতিশোধমূলক হামলার ভয়ে বাড়িতে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন।

সূত্র : রয়টার্স, আল জাজিরা