এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হলো জাতীয় সংসদ

তিউনিশিয়ায় প্রচণ্ড রাজনৈতিক ডামাডোলের মধ্যে প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ জাতীয় সংসদের অধিবেশনের ওপর স্থগিতাদেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়িয়েছেন। তিউনিশিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে অপমানজনকভাবে বরখাস্ত করার এক মাসেরও বেশি সময় পর যখন দেশটি কার্যত সরকারবিহীন অবস্থায় রয়েছে তখন প্রেসিডেন্ট সাঈদ এই পদক্ষেপ নিলেন।

গত মাসে তিনি অপ্রত্যাশিতভাবে তিউনিশিয়ার নির্বাহী ক্ষমতা নিজের হাতে নেন। এতে বিরোধীরা তীব্র ক্ষুব্ধ হয়েছেন, প্রেসিডেন্ট সাঈদের এই পদক্ষেপকে তারা ক্যু’ বলে মন্তব্য করেছেন। এ অবস্থার মধ্যে গতকাল (সোমবার) প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে একটি আদেশ জারি করা হয় যাতে বলা হয়েছে, জাতীয় সংসদের অধিবেশন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়েছে এবং পরবর্তী নোটিশ না দেয়া পর্যন্ত সংসদ সদস্যদের ওপর থেকে দায়মুক্তির ধারা প্রত্যাহার করা হলো।

প্রেসিডেন্টের দপ্তর থেকে জারি করা ডিগ্রিতে আরো বলা হয়েছে যে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে কায়েস সাঈদ জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন। ধারণা করা হচ্ছে তার ভাষণে তিনি জনগণকে নতুন কোনো পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানাবেন যা তাদের উদ্বেগ কমানোর ব্যাপারে ভূমিকা রাখতে পারে।

প্রেসিডেন্ট সাঈদ ক্ষমতা কুক্ষিগত করার পর দেশের জনগণ এবং আন্তর্জাতিক সমাজে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা সৃষ্টি হয়েছে। অনেকে মনে করছেন ২০১১ সালে আরব বসন্তের মাধ্যমে তিউনিশিয়ায় স্বৈরতন্ত্রের পতন হলেও নতুন করে আবার কর্তৃত্ববাদী সরকারের আবির্ভাব হতে পারে।

সূত্রঃ পার্সটুডে