এটি আমেরিকার সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের অনিবার্য পরিণতি: রাশিয়া

রাশিয়া বলেছে, ইরান শতকরা ২০ মাত্রায় সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের ধাতব দণ্ড বা সিলিকন ফুয়েল প্লেট তৈরির যে উদ্যোগ নিয়েছে তা আমেরিকার সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের অনিবার্য পরিণতি। অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় পাশ্চাত্যের সঙ্গে ইরানের চলমান পরমাণু সংলাপে রুশ প্রতিনিধিদলের প্রধান মিখাইল উলিয়ানোভ এ মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেছেন, “পরমাণু অস্ত্রধর দেশগুলোর বাইরে ইরান হচ্ছে প্রথম দেশ যে কিনা শতকরা ৬০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার কাজ করছে। আর এখন ২০ মাত্রায় সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের ধাতব দণ্ড তৈরির কাজে হাত দিয়েছে। এই পরিস্থিতি মার্কিন কর্মকর্তাদের জন্য সন্তোষজনক বলে আমার মনে হয় না। অবশ্য মেনে নিতে হবে এটি আমেরিকারই একটি আচরণের অনিবার্য পরিণতি। সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতি আজ পর্যন্ত বহাল রয়েছে।

উলিয়ানোভের উদ্ধৃতি দিয়ে রুশ বার্তা সংস্থা স্পুৎনিক আরো জানিয়েছে, মার্কিন সরকার সাবেক ট্রাম্প প্রশাসনের এই ব্যর্থ নীতি থেকে সরে যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে। কিন্তু তাকে এ কাজ করতে হবে পরমাণু সমঝোতার অবকাঠামোর আওতায়। ইরানের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের পরিবর্তে আমেরিকাকে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিতে হবে।

ভিয়েনা সংলাপে ৯০ ভাগ অগ্রগতি হয়েছেন জানিয়ে রুশ প্রতিনিধি বলেন, আগামী ১০ দিনের মধ্যে পরবর্তী দফা আলোচনা শুরু হতে পারে এবং ভিয়েনা চুক্তি চূড়ান্ত হলে আগামী মাসেই ইরানের তেল খাতের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সম্ভাবনা রয়েছে।

সূএঃ পার্সটুডে