উত্তরাঞ্চলে অবস্থান জোরদার করছে তালেবান

তালেবান চার দিনে আফগানিস্তানের ছয় প্রদেশের রাজধানী দখলে নিয়েছে। একই সঙ্গে দেশের আরও বহু এলাকার দখল নিতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে লড়ছেন তারা।

রয়টার্স জানিয়েছে, উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় শহর মাজার ই শরিফ দিকে এগিয়ে যাচ্ছে তালেবান। যদিও শহরটি রক্ষায় জীবনপণ লড়াই করার প্রত্যয় জানিয়েছেন সরকারপন্থি মিলিশিয়া বাহিনীরগুলোর কমান্ডাররা। পাশাপাশি উত্তরাঞ্চলের দখলে নেওয়া এলাকাগুলোর ওপর নিয়ন্ত্রণ জোরদার করেছে তালেবান।

সোমবার মাজার ই শরিফ ও রাজধানী কাবুলের মধ্যবর্তী প্রধান মহাসড়কের ওপর অবস্থিত সামানগান প্রদেশের রাজধানী শহর আইবাকের দখল নেওয়ার পর সেখানে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ জোরদার করেছেন তালেবান যোদ্ধারা, তারা সরকারি ভবনগুলোতে অবস্থান নিচ্ছেন।

সরকারি নিরাপত্তা বাহিনীগুলোর অধিকাংশ সদস্য শহরটি থেকে সরে গেছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রাদেশিক কর কর্মকর্তা শের মোহাম্মদ আব্বাস বলেন, একমাত্র পথ হচ্ছে স্বেচ্ছা গৃহবন্দি থাকা অথবা কাবুলের দিকে চলে যাওয়ার কোনো রাস্তা বের করা। কিন্তু এখন কাবুলও আর নিরাপদ নয়।

তালেবান যোদ্ধারা এখন বিভিন্ন দিকে থেকে উত্তরাঞ্চলের বৃহত্তম শহর মাজার ই শরিফের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। মাজার ই শরিফের পতন হলে তা কাবুলের গনি সরকারের জন্য ধ্বংসাত্মক বিপর্যয় হয়ে দেখা দিতে পারে।

এদিকে আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীগুলোকেই তাদের নিজেদের রক্ষা করতে হবে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন মন্তব্যের পর আঞ্চলিক শক্তিমান নেতাদের সরকারের প্রতি সমর্থন দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি।

দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। আগস্টেই প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শেষ করবে দেশটি। এর মধ্যেই তালেবান দেশের প্রায় অর্ধেকের বেশি জেলার দখল নিয়ে নিয়েছে। সামরিক উপায়ে ক্ষমতায় যেতে চায় না তালেবান এমন কথা বলার পরও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি।