ইসলামি শরিয়াহ আইন আরও জোরদার করছে মালয়েশিয়া

ইসলামি শরিয়াহ আইন আরও জোরদার করতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। এ লক্ষ্যে দেশটির সরকারের একটি টাস্কফোর্স আইন সংশোধনের প্রস্তাব দিয়েছে। মূলত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইসলাম অবমাননা আর সমকামী জীবনযাত্রা সংক্রান্ত পোস্ট বন্ধে এই পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। মুসলিম সংখ্যা গরিষ্ঠ মালয়েশিয়ার ইসলামি আইনানুযায়ী বিকৃতকাম আর সমকামিতা অবৈধ। যদিও এ সব অপরাধে শাস্তির ঘটনা দেশটিতে বিরল।

চলতি বছরের জুনে লেসবিয়ান, গে, বাই-সেক্সুয়াল এবং ট্রান্সজেন্ডার সম্প্রদায়ের প্রাইড মাস চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ সংক্রান্ত পোস্ট দেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় এই শরিয়াহ আইনে সংশোধনী আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে দেশটির ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আহমদ মারজুক শারি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন।

দেশটির ৩২০ লাখ জনসংখ্যার মধ্যে ৬০ শতাংশই মালয় মুসলিম সম্প্রদায়ের। দেশটিতে দুই ধরনের আইনি ব্যবস্থা প্রচলিত আছে। মুসলামদের জন্য রয়েছে ইসলামি শরিয়াহ আইন। পাশাপাশি সিভিল আইনও দেশটিতে বিদ্যমান।
আহমদ মারজুক জানান, যদি কোনো মুসলিম ‘ইসলাম ধর্মের অবমাননা’ করে তাহলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে বলে আইন সংশোধনীতে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ইন্টারনেটের মাধ্যমে শরিয়াহ বিরোধী কোনো কাজ করলেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে প্রস্তাবিত আইন সংশোধনীতে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মালয়েশিয়ায় লেসবিয়ান, গে, বাই-সেক্সুয়াল এবং ট্রান্সজেন্ডার সম্প্রদায়ের ব্যাপারে প্রকাশে আলোচনা চলায় সরকার এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে সমকামীরা সমাবেশ করলে এর নিন্দা জানিয়েছিলেন মালয়েশিয়ার একজন মন্ত্রী আর মুসলিম দলগুলো।
ওই বছরের শেষের দিকে সমকামিতার অভিযোগে পাঁচ ব্যক্তিকে কারাদণ্ড, জরিমানা আর বেত্রাঘাতের শাস্তি দেন দেশটির আদালত।