ইসরাইলকে বয়কট ডিক্রি বাতিল করল আমিরাত

ইসরাইলের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক বয়কট ডিক্রি বাতিল করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার অংশ হিসেবে ব্যবসা বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক লেনদেনে অনুমোদন দেওয়ার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান এ আইন বাতিল করেন। শনিবার আমিরাতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থার বরাত দিয়ে এ খবর জানায় ।

বলা হচ্ছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় চলতি মাসের মাঝামাঝি দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে একটি চুক্তিতে অংশ নেয় আরব আমিরাত ও ইসরাইল। এর ফলে ফিলিস্তিন ইস্যু থেকে শুরু করে ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধসহ মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক মানচিত্রে বড় ধরনের পরিবর্তনের সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট ইসরাইলের বিরুদ্ধে বয়কটের চুক্তিটি বাতিল করেন।

প্রথমবারের মতো তেল আবিবের বেন গুরিয়ন বিমানবন্দর থেকে আমিরাতের রাজধানী আবু ধাবিতে ইসরাইলের রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান এল আল ইসরাইল এয়ারলাইন্স লিমিটেডের সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতির মধ্যেই খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান ইসরাইলকে বয়কটের আইন বাতিল করলেন।

সোমবার ওই ফ্লাইটটিতে দেশটির সরকারের একটি প্রতিনিধি দলের পাশাপাশি জারড কুশনারসহ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কয়েকজন উপদেষ্টাও থাকবেন বলে যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

সম্প্রতি তৃতীয় দেশ হিসেবে আরব আমিরাত ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিককরণ চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। এর ফলে দুই দেশের মধ্যে উভয়ের দূতাবাস চালু ও ব্যবসা-বাণিজ্যে কোনো বাধা থাকবে না।