ইসরাইলকে নিঃশর্ত সহায়তার প্রতিশ্রুতি বাইডেন-হ্যারিসের

দখলদার ইসরাইলকে মার্কিন সহায়তায় কোনো শর্তারোপ করবেন না জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কামালা হ্যারিস এমন দাবিরই পুনরাবৃত্তি করলেন।

তিনি বলেন, এই সহায়তা ইসরাইলি সরকারের কোনো রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট হবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের আট সপ্তাহ আগে তিনি যখন এই প্রতিশ্রুতি দিলেন, তখন অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু পশ্চিমতীরকে একীভূত করে নেয়ার কথা ভাবছেন।

বুধবার ইহুদি-আমেরিকান ভোটারদের ভার্চ্যুয়াল তহবিল সংগ্রহকারীদের তিনি বলেন, জো বাইডেন এটা পরিষ্কার করে দিয়েছেন যে ইসরাইলি সরকারের কোনো রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের সঙ্গে মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তার বিষয়টিকে জড়াবেন না।

ইসরাইলের প্রতি জো বাইডেনের অব্যাহত সমর্থনকেই এগিয়ে নেয়ার কথা বলেছেন ক্যালিফোর্নিয়ার এই সিনেটর।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকাকালে ইসরাইলের সামরিক সহায়তা নিশ্চিত করতে জো বাইডেনের ভূমিকার কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন কামালা হ্যারিস।

হ্যারিস বলেন, ইসরাইলের নিরাপত্তায় বাইডেন-হ্যারিস প্রশাসন তাদের অটল প্রতিশ্রুতি বজায় রাখবে। যার মধ্যে ওবামা-বাইডেন প্রশাসনের এগিয়ে নিয়ে যাওয়া নজিরবিহীন সামরিক ও গোয়েন্দা সহযোগিতাও অব্যাহত রাখা হবে। ইসরাইলকে অত্যাধুনিক সামরিক সুবিধা দেয়ার বিষয়টিও বজায় থাকবে বলে তিনি জানান।

ইসরাইল প্রতিবছর ৩৮০ কোটি ডলার মার্কিন সামরিক সহায়তা পাচ্ছে। ২০১৬ সালে ক্ষমতা ছাড়ার পরবর্তী ১০ বছরে অবৈধ রাষ্ট্রটিকে তিন হাজার ৮০০ কোটি ডলার সামরিক সহায়তা নিশ্চিত করতে একটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন ওবামা।

ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী বাছাইকালে ইসরাইলকে সামরিক সহায়তা দেয়ার ক্ষেত্রে মানবাধিকার নিশ্চিত করার শর্তারোপের কথা তুলেছিলেন বার্নি স্যান্ডার্স। যে প্রস্তাব সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাখ্যান করেন জো বাইডেন।