ইরানে সিলিকন ফুয়েল প্লেট তৈরির উদ্যোগে আমেরিকা ও ইউরোপের উদ্বেগ

ইরান শতকরা ২০ ভাগ সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম দিয়ে ধাতব পারমাণবিক প্লেট তৈরির যে উদ্যোগ নিয়েছে তাকে ‘উদ্বেগজনক’ আখ্যায়িত করে তেহরানকে ভিয়েনা সংলাপে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ওই মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, “ইরান নিজের পরমাণু প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না করার বিষয়টিকে আরো কঠোর করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা উদ্বেগজনক। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরো বলেন, “আমরা কূটনৈতিক পথে চলা অব্যাহত রাখব কারণ আমরা বিশ্বাস করি এটিই শ্রেষ্ঠ ও কার্যকর পন্থা।

এদিকে তিন ইউরোপীয় দেশ ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানিও এক যৌথ বিবৃতিতে ইরানের সিলিকন ফুয়েল প্লেট তৈরির সিদ্ধান্তে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। তিন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক যৌথ বিবৃতিতে দাবি করেছে, ইরান এ পদক্ষেপের মাধ্যমে আবারও পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘন করেছি। আমেরিকার সঙ্গে তাল মিলিয়ে তিন ইউরোপীয় দেশ যে ২০১৮ সালের মে মাস থেকে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘন করে যাচ্ছে সে বিষয়টি ওই যৌথ বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়নি।

ইরান শিগগিরই ২০ মাত্রায় সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের ধাতব বা ‘সিলিকন ফুয়েল প্লেট’ তৈরি করবে বলে ঘোষণা দেয়ার পর আমেরিকা ও ইউরোপ এ প্রতিক্রিয়া জানাল। আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ’তে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজেম গরিবাবাদি এ ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, এখন থেকে নয় দিন আগে এ বিষয়টি আইএইএ’কে জানানো হয়েছে এবং সেদিন থেকেই এ সংক্রান্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

গরিবাবাদি বলেন, এই ফুয়েল প্লেট সম্পূর্ণ বেসামরিক উদ্দেশ্যে তেহরানের পরীক্ষামূলক রিঅ্যাক্টরে কাজে লাগানো হবে। ইরান আইএইএ’কে বিষয়টি জানানোর পর ওই সংস্থার পক্ষ থেকে তা একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।এর পরপরই গরিবাবাদি মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, সিলিকন ফুয়েল হচ্ছে অত্যাধুনিক পরমাণু জ্বালানি যা উৎপাদনের প্রযুক্তি বিশ্বের হাতে গোনা মাত্র কয়েকটি দেশ রপ্ত করেছে।

সূত্রঃ পার্সটুডে