ইরানেরও ‘উপযুক্ত ব্যবস্থা’ নেয়ার অধিকার রয়েছে: শামখানি

ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ইহুদিবাদী ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেতের সাক্ষাতে ইরানকে যে হুমকি দেয়া হয়েছে তা সম্পূর্ণ বেআইনি।তিনি বলেছেন, ইরানের বিরুদ্ধে ‘অন্যান্য ব্যবস্থা’ নেয়ার যে হুমকি দেয়া হয়েছে তার বিরুদ্ধে ‘উপযুক্ত ব্যবস্থা’ নেয়ার অধিকার তেহরান সংক্ষণ করে।

তিনি গতকাল (শনিবার) নিজের অফিসিয়াল টুইটার পেজে দেয়া এক পোস্টে ইরানকে হুমকি দেয়ার নিন্দা জানিয়ে একথা বলেন। শামখানি বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে ‘অন্যান্য পথ খোলা রাখার’ যে হুমকি দেয়া হয়েছে তা একটি স্বাধীন দেশের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন এবং বেআইনি।

ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা কর্মকর্তা আরো লিখেছেন, এ ধরনের হুমকির জবাবে ইরান যদি তার ক্ষমতা অনুসারে জবাব পাল্টা জবাব দেয় তাহলে সেটি হবে তার বৈধ অধিকার।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শুক্রবার হোয়াইট হাউজে ইহুদিবাদী ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেতের সঙ্গে সাক্ষাতে বলেন, তার প্রশাসন ইরানের ব্যাপারে কূটনীতিকে অগ্রাধিকার দিতে চায়। তবে কূটনীতি ব্যর্থ হলে ইরানের বিরুদ্ধে অন্যান্য ব্যবস্থা নেয়ার পথ খোলা রাখা হয়েছে।

আমেরিকা যাতে ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে না আসে সেজন্য বাইডেনকে রাজি করাতেই মূলত বেনেত আমেরিকা সফরে গেছেন। তবে বাইডেন ইরানের সঙ্গে কূটনীতিকে প্রাধান্য দেয়ার কথা বলে মূলত ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন। ভিয়েনায় গত এপ্রিল থেকে ইরানের পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের যে আলোচনা চলছিল তা বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। শিগগিরই তা আবার শুরু হতে পারে বলে সম্প্রতি রাশিয়া জানিয়েছে।

সূত্রঃ পার্সটুডে