ইউরোপের হুমকির পরও সমুদ্রে অভিযান তুরস্কের

গ্রিসের প্রবল আপত্তি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) হুমকি সত্ত্বেও পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান বাড়াচ্ছে মুসলিম রাষ্ট্র তুরস্ক। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ওই অঞ্চলে তুর্কি অনুসন্ধানী জাহাজ ওরুক রেইস তার কার্যক্রম চালাবে বলে ঘোষণা আঙ্কারার।

এ দিকে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বলেছেন, তার দেশ প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রিসের সঙ্গে আলোচনার পক্ষপাতী। এর মাধ্যমে পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় সম্পদের সুষ্ঠু ভাগাভাগি সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) আলজেরীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমর্থনে গ্রিসই ভূমধ্যসাগরে উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের সব পাশের দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনার পক্ষে, যার মাধ্যমে সবাই সম্পদের সুষ্ঠু ভাগাভাগি থেকে উপকৃত হতে পারে।

দুই ন্যাটো সদস্য তুরস্ক ও গ্রিসের মধ্যে সামুদ্রিক জলসীমা নিয়ে বিরোধ দীর্ঘদিনের। সম্প্রতি তুরস্ক পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানকারী জাহাজ ‘ওরুক রেইস’ এবং এর সঙ্গে নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজের বহর পাঠালে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়।

 

উভয় পক্ষই পূর্ব ভূমধ্যসাগরে সামরিক মহড়া দিয়েছে। এতে তাদের মধ্যে বড় ধরনের বিরোধের সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠেছে। দুই সপ্তাহ আগে তুরস্কের ওরুক রেইসকে সঙ্গ দেওয়া ফ্রিগেটের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে গ্রিক যুদ্ধজাহাজের।

দুই দেশের দ্বন্দ্বের মধ্যে গ্রিসের পক্ষ নিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ)। পূর্ব ভূমধ্যসাগরে উত্তেজনা সৃষ্টির অভিযোগে আঙ্কারার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে তারা।

সূত্র : আল-জাজিরা