আসছে ৪০ দিন স্ট্যান্ডবাই ও নাইটস্কেপ ডুয়েল ক্যামেরার মোবাইল ফোন

চমকের পর চমক দিয়ে যাচ্ছে রিয়েলমি। তরুণদের চাহিদা অনুযায়ী অত্যাধুনিক সব ফিচার এবং হার্ডওয়্যারে চোখ-ধাঁধানো সব ডিভাইস বাজারে আনছে মোবাইল ব্র্যান্ডটি।

এবারও মাত্র ৮ হাজার ৯৯০ টাকায় রিয়েলমি সি ইলেভেন সবার নজর কাড়বেই। মোবাইলটি সারা দিনের ব্যবহারেও ভাবতে হবে না ফোনের চার্জ নিয়ে। এছাড়া সব অত্যাধুনিক ফিচার তো আছেই।

মহামারী করোনার কারণে স্মার্টফোনের ব্যবহার বেড়ে গেছে অনেক। প্রেজেন্টেশন তৈরি, গান শোনা, মুভি বা টিভি সিরিজ দেখা, আর অনলাইন গেমিং সব কাজেই ব্যবহার হচ্ছে। তাই শক্তিশালী ব্যাটারি ছাড়া এখন স্মার্টফোন ভাবাই যায় না।

সি সিরিজের সর্বশেষ এই ফোনে রয়েছে ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি। নতুন এ ফোনটি একবার সম্পূর্ণ চার্জে ১২ ঘণ্টা অনলাইন গেম খেলা যাবে। ২১ ঘণ্টা পছন্দের মুভি বা টিভি সিরিজ দেখা যাবে অথবা প্রায় এক সপ্তাহ পছন্দের গান শোনা যাবে। প্রায় ৩২ ঘণ্টা ফোনে কথা বলা যাবে। এ ছাড়া শক্তিশালী এই ব্যাটারি দেবে ৪০ দিন স্ট্যান্ডবাই সুবিধা।

সি ইলেভেনে রয়েছে রিভার্স চার্জিংয়ের সুবিধাও। যার ফলে এই ফোনকে পাওয়ার ব্যাংক হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে। মাইক্রো ইউএসবি ওটিজির মাধ্যমে অন্য ফোনও চার্জ দেওয়া যাবে। রিয়েলমি সি ইলেভেনে ব্যাটারির নিরাপত্তায় ব্যবহার করা হয়েছে স্টেইনলেস স্টিলের ব্যাটারি প্রোটেক্টর। তা ছাড়া, স্মার্টফোনটি সম্পূর্ণ ফায়ারপ্রুফ ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি।

ডিজাইনের ক্ষেত্রে সি সিরিজ মানেই রঙের বৈচিত্র্যময়তা ও সৃষ্টিশীলতা। এর ধারাবাহিকতায় ফোনের ডিজাইনে নান্দনিকতার সমন্বয় করতে রিয়েলমি সি ইলেভেন ফোনটি ডিজাইন করা হয়েছে ডাচ্‌ শিল্পী ও তাত্ত্বিক পিয়ে কর্নেলিস মন্ড্রিয়ানের বিমূর্ত ছবির শৈল্পিক জ্যামিতিক নকশা থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে।

পিয়ে কর্নেলিস মন্ড্রিয়ানের বিমূর্ত শিল্পের অন্যতম প্রবক্তা। বিংশ শতাব্দীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শিল্পী। সূক্ষ্ম জ্যামিতিক কারুকার্যে রিয়েলমি সি ইলেভেন ফোনটির পেছনে তৈরি হয়েছে অদ্ভুত এক নান্দনিকতা। এর মনকাড়া স্লিক ডিজাইন সহজেই স্মার্টফোনপ্রেমীদের মন জয় করে নেবে।

৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি থাকার পরও ওজনে মাত্র ১৯৬ গ্রামের এ ফোন মাত্র ৯.১ মিলিমিটার পাতলা। যার ফলে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে হাতের মুঠোয় ফোনটি ব্যবহার করা যাবে। ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে আকর্ষণীয় দুটি রঙে—মিন্ট গ্রিন ও পেপার গ্রে। চমৎকার উদ্ভাবনী ডিজাইনের কারণে ফোনটির পেছনে সহজে হাতের ছাপ কিংবা তেলজাতীয় কোনো কিছুর দাগ লেগে থাকবে না। তাই বারবার মোছার ঝামেলায়ও পড়তে হবে না।

রিয়েলমি সি ইলেভেনে আছে ৬.৫ ইঞ্চির এইচডি প্লাস মিনিড্রপ ডিসপ্লে। ফোনটিতে রয়েছে ৮৮.৭ শতাংশ স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও। রিয়েলমি সি ইলেভেনে আছে ডুয়াল এআই রিয়ার ক্যামেরা। ১৩ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরায় থাকছে এফ/২.২–এর বড় অ্যাপারচার। পোর্ট্রেট মোডে ছবি তুলতে ব্লার এফেক্টের জন্য ফোনটিতে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের লেন্স।

ফোনটির ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরায় তোলা যাবে প্রাণবন্ত সেলফি। রিয়েলমি সি ইলেভেনে নাইটস্কেপ মোডে অল্প আলোতেও রাতের শহর, বিল্ডিংসহ নানান ছবি অসাধারণ ডিটেইলে তোলা যাবে। ৩০ ফ্রেমে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ডিংয়ের পাশাপাশি আছে এইচডিআর, টাইম-ল্যাপস ও প্যানোরামার সুবিধা।

এ ফোনে আছে ২ গিগাবাইট র‍্যাম ও ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ। পাশাপাশি রয়েছে মাইক্রো এসডি কার্ডের ব্যবহারে ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজ বাড়ানোর সুবিধা। ৩.৫ মিলিমিটার হেডফোন জ্যাকও আছে রিয়েলমি সি ইলেভেনে, নির্দ্বিধায় প্লাগইন করে বিনোদনে মেতে উঠতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।