আলোচনার জন্য সরকারকে যে শর্ত দিল তালিবান

Members of a Taliban delegation, led by chief negotiator Mullah Abdul Ghani Baradar (C, front), leave after peace talks with Afghan senior politicians in Moscow, Russia May 30, 2019. REUTERS/Evgenia Novozhenina - RC17FC2683A0

যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র আফগানিস্তানের সরকারের সঙ্গে শর্তসাপেক্ষে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছে সশস্ত্র সংগঠন তালিবান। বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) কাতারের রাজধানী দোহায় গোষ্ঠীটির মুখপাত্র সোহেল শাহিন এক টুইটার বার্তায় এ আগ্রহের কথা জানান।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মার্কিন প্রতিনিধিদের সঙ্গে দীর্ঘদিনের শান্তি আলোচনার পর গত মার্চে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে তালিবানরা। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তি চুক্তি করলেও তখন আফগান সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসার বিষয়ে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল তারা।

চুক্তিতে বলা হয়েছে, আফগান সরকার তালিবানের পাঁচ হাজার বন্দিকে এবং তালেবান আফগান সরকারের এক হাজার বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার পর দু’পক্ষের মধ্যে সরাসরি শান্তি আলোচনা শুরু হবে।

তালিবান মুখপাত্র সোহেল শাহিন বলেন, পবিত্র ঈদুল আজহার আগে সব সরকারি বন্দিকে মুক্তি দিতে রাজি তালিবান। তবে সরকারের কাছে যে তালিকা দেওয়া হয়েছে সে অনুযায়ী সরকারি কারাগারগুলোতে বন্দি সব তালিবান সদস্যকে মুক্তি দিতে হবে।

সোহেল শাহিন টুইটার বার্তায় আরও বলেন, বন্দি মুক্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে ঈদুল আজহার পর আফগান সরকারের সঙ্গে তারা আলোচনায় বসার জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত।

তবে বিষয়টি নিয়ে আফগান সরকারের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।শুরু থেকে কাবুল দাবি করে আসছে, তালিবানের দেওয়া তালিকার অনেকেই বিপজ্জনক যোদ্ধা। তারা মুক্তি পাওয়া মাত্রই যুদ্ধক্ষেত্রে যোগ দেবে।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন ধাপে সরকার এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৪০০ তালিবান বন্দিকে এবং তালিবানরা ৮৭৬ জন সরকারি বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে।