আর্থিক প্রতিষ্ঠানেও সেপ্টেম্বর পর্যন্ত খেলাপি নয়

করোনাভাইরাস সংকটের মধ্যে ব্যাংকগুলোর মতো নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানেও কোনো গ্রাহক ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে না পারলে তাকে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত খেলাপি করা যাবে না।

এর আগে গত ২৪ মার্চ জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ঋণ খেলাপির ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। মহামারীর প্রকোপ দীর্ঘায়িত হওয়ায় আরও তিন মাস বাড়িয়ে তা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হল।

একই সঙ্গে এ সময়ে কোনো দণ্ড সুদ বা অতিরিক্ত ফি/চার্জ/কমিশন আরোপ করা যাবে না। বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে, যা সব নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিশ্ববাণিজ্যের পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব বিবেচনায় গত ২৪ মার্চ আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ/লিজ/অগ্রিম শ্রেণিকরণের বিষয়ে কিছু শিথিলতা আনা হয়েছিল।

এখনও কোভিড-১৯ এর কারণে অনেকাংশে ঋণ/লিজ/অগ্রিম গ্রহিতার পক্ষে স্বাভাবিক ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ব্যবসা-বাণিজ্যের ওপর করোনাভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব লাঘবের জন্য কিছু নির্দেশনা অনুসরণের পরামর্শ দেয়া হল।

এগুলোর মধ্যে রয়েছে, গত ২৪ মার্চ জারি করা এ সংক্রান্ত সার্কুলারের কার্যকারিতার মেয়াদ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ পর্যন্ত বর্ধিত করা হল। বিদ্যমান সব মেয়াদি (স্বল্প ও দীর্ঘ) ঋণ/লিজ/অগ্রিমের বিপরীতে ১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রদেয় কিস্তিগুলো ডেফার্ড হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে অক্টোবর ২০২০ থেকে সংশ্লিষ্ট ঋণ/লিজ/অগ্রিমের কিস্তির পরিমাণ ও সংখ্যা পুনর্নির্ধারিত হবে।