আম্পায়ারিং নিয়ে তদন্তের নির্দেশ পাপনের

আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করতে গিয়ে গতকাল তুলকালাম ঘটিয়েছেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেজন্য তাকে শাস্তিও দেওয়া হয়েছে। ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ ও ৫ লাখ টাকা জরিমানার শাস্তি পেয়েছেন সাকিব। তবে যে কারণে এই ঘটনার উদ্ভব হয়েছে, এবার তার অনুসন্ধানে নামছে বিসিবি। আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত মানতে না পেরে রাগে ফেটে পড়েন সকিব। প্রথমে তিনি লাথি মেরে স্টাম্প ভাঙেন। এরপর তিনটি স্টাম্প তুলে ছুড়ে ফেলেন।

আজ শনিবার এই ঘটনা নিয়ে শনিবার (১২ জুন) সিসিডিএম চেয়ারম্যান ইনাম আহমেদ এবং টেকনিক্যাল কমিটির সভাপতি জালাল ইউনুসের সাথে সভায় বসেন বিসিবি সভাপতি। সভায় তিনি ঘটনার মূল উৎস সম্পর্কে জানতে চান। তখন আম্পায়ারিং নিয়ে অভিযোগ উঠলে বিসিবি বস তা তদন্তের নির্দেশ দেন। ৩ দিন পর বিসিবির বোর্ড মিটিং আছে। সেই সভার আগেই তদন্তকাজ শেষ করার কথা বলেছেন পাপন। এই উপলক্ষে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

৫ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটিতে আছেন ইনাম আহমেদ, জালাল ইউনুস, বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয় ও শেখ সোহেল এবং বিসিবির প্রধান ম্যাচ রেফারি ও সাবেক ক্রিকেটার রকিবুল হাসান। ইনাম আহমেদ বলেন, ‘বোর্ড সভাপতি এটা নিয়ে ভাবছেন এবং পুরো বিষয় জানতে চেয়েছেন। উনি এই ঘটনার মূল কারণ জানতে চান। ৩ দিন পর আমাদের বোর্ড মিটিং আছে। তার আগেই উনি তদন্ত করতে বলেছেন। আমরা সব ক্লাবের ম্যানেজার এবং অধিনায়কদের নিয়ে বসব আগামী দুই দিনের মধ্যে। যদি ডিপিএলের খেলার কোনো ইস্যু, পরিস্থিতি, সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ থাকে আমরা সেটা শুনব।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ভালোভাবে লিগ চালাতে চাই। অনেকে অনুরোধ করেছে লিগটা হতে হবে, আমরা অনেক খরচ করে সুন্দর করে লিগটা করছি। আমাদের খেলাগুলো পিচ ভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে অনেক উন্নতি করা হয়েছে। বোর্ড সভাপতি প্রশ্ন করেছেন, এরকম হলে লিগ চালানোর দরকার কি? আমরা ১৫ তারিখের বোর্ড সভায় রিপোর্ট উনাকে দিতে পারব। বোর্ড সভাপতি আম্পায়ারিং নিয়ে অনেক গুরুত্বের সাথে নিচ্ছেন। তিনি পরিপূর্ণ রিপোর্ট চান, তদন্ত চান।