আমিরাত-সৌদি দিলেও ইসরায়েলের জন্য আকাশ খুলবে না কুয়েত

মধ্যপ্রাচ্যের কথিত ইসলামিক রাষ্ট্র আমিরাতের সঙ্গে বন্ধুত্ব দেখে ইহুদিবাদী দখলদার রাষ্ট্র ইসরায়েলের সকল বিমান চলাচলের জন্য নিজেদের আকাশপথ খুলে দিয়েছে সৌদি আরব।

যদিও রিয়াদের সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করে এরই মধ্যে ইহুদিদের জন্য নিজেদের আকাশ বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে আরেক মুসলিম দেশ কুয়েত।

এমনকি সংযুক্ত আরব আমিরাত যাওয়ার পথে ইসরায়েলি বিমান কুয়েতি আকাশ ব্যবহার করেছে বলে যে খবর বেরিয়েছে, সেটিকেও ভিত্তিহীন এবং গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে দেশটি।

সরকারি সূত্রের বরাতে কুয়েত  জানিয়েছে, ইসরায়েলি বিমান সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছানোর জন্য কখনই কুয়েতের আকাশপথ ব্যবহার করতে পারবে না।

সূত্র বলছে, ইসরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যকার নতুন রুটটি ‘কুয়েত দিয়ে নয়, অন্য কোনো দেশের মধ্য দিয়ে গেছে’, যেটি কুয়েত থেকে অনেক দূরে।

কুয়েত সরকারের মতে, তারা কোনো দিনই ইসরায়েলের বিমানকে আকাশসীমা ব্যবহার করতে দেবে না। এছাড়া কুয়েত ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্কও প্রতিষ্ঠা করবে না।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) সৌদি আরবের জেনারেল অথরিটি ফর সিভিল এভিয়েশন (জিএসিএ) বিবৃতির মাধ্যমে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ইসরায়েলে বিমান চলাচলে নিজেদের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে।

মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে ট্রাম্পের জামাতা ও তার জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা জারেড কুশনারের বৈঠকের পরেই সিদ্ধান্তটি ঘোষণা করে সৌদি আরব।

উল্লেখ্য, গুরুত্বপূর্ণ এই সিদ্ধান্তের জন্য উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।