আমিরাত বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, এই কলঙ্ক মুছে যাবে না: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্ব, আরব জাতি, গোটা অঞ্চল ও ফিলিস্তিনের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

তিনি আজ (মঙ্গলবার) দেশের শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তাদের বার্ষিক সম্মেলনে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এ কথা বলেছেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেছেন, আরব আমিরাতের বিশ্বাসঘাতকতা বেশি দিন স্থায়ী হবে না। কিন্তু এই কলঙ্ক মুছে যাবে না। তিনি বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এই অঞ্চলে ইহুদিবাদীদের উপস্থিতির সুযোগ করে দিয়েছে। ফিলিস্তিন ইস্যু অর্থাৎ ইহুদিবাদীরা যে একটি রাষ্ট্রকে দখল করে সেখানে নিজেদের অস্তিত্ব ঘোষণা করেছে আরব আমিরাত তা ভুলে গিয়ে তাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করেছে।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, ফিলিস্তিনি জাতি সব দিক থেকেই প্রচণ্ড চাপের মধ্যে রয়েছে। এ অবস্থায় আরব আমিরাত ইসরাইলি এবং ট্রাম্প পরিবারের ইহুদি সদস্যের মতো দুষ্টুদের সঙ্গে মিলেমিশে মুসলিম বিশ্বের স্বার্থের বিরুদ্ধে কাজ করছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত দ্রুত সচেতন হয়ে নিজের ভুল সংশোধন করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্যোগে দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছে মুসলিম ও আরব দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল (সোমবার) ইসরাইলের সঙ্গে আমিরাতের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। প্রথম ফ্লাইটে যাত্রী হিসেবে আমিরাতে গেছেন ট্রাম্পের ইহুদি জামাতা ও উপদেষ্টা জেরাড কুশনার।

ফিলিস্তিনের সব দল ও সংগঠন ঐক্যবদ্ধভাবে আরব আমিরাতের এই অন্যায় সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে। তারা বলেছে, আমিরাত ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরি মেরেছে।