আফগান মেয়েদের একমাত্র বোর্ডিং স্কুলের সব শিক্ষার্থীর দেশত্যাগ

আফগানিস্তানে মেয়েদের একমাত্র বোর্ডিং স্কুলের প্রায় সব শিক্ষার্থী এবং কর্মচারীদের গোপনে রুয়ান্ডায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) এ তথ্য জানিয়েছেন বেসরকারিভাবে পরিচালিত প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি শাবানা বাসিজ-রসিখ। খবর প্রকাশ করেছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবানরা আফগানিস্তানে মার্কিন সমর্থিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার কয়েক দিন পরেই এই পদক্ষেপ নিলো স্কুল কর্তৃপক্ষ। যেখানে তালেবান সর্বশেষ ক্ষমতায় থাকাকালীন (১৯৯৬-২০০১ সাল) মেয়ে এবং নারী শিক্ষা নিষিদ্ধ করেছিল।

কাবুলে অবস্থিত স্কুল অফ লিডারশিপ আফগানিস্তানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা শাবানা বাসিজ-রসিখ বলেন, গত সপ্তাহে আমরা কাবুল থেকে প্রায় ২৫০ শিক্ষার্থী, অনুষদ, কর্মচারী এবং পরিবারের সদস্যদের প্রস্থান সম্পন্ন করেছি। টুইট বার্তায় তিনি বলেন, সবাই কাতার হয়ে রুয়ান্ডার পথে আছে। যেখানে আমরা আমাদের একটি সেমিস্টার শুরু করতে চাই।

স্কুলটির সভাপতি বলেন যে, তিনি আশা করছেন তারা সবাই শেষ পর্যন্ত ফিরে যেতে পারবেন। বলেন, আমাদের পুনর্বাসন স্থায়ী নয়। যখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, আমরা আফগানিস্তানে ফিরে যেতে পারবো বলে আশা করি। আপাতত, আমি আমাদের সম্প্রদায়ের জন্য গোপনীয়তার অনুরোধ করছি।

তার পোস্টগুলো শিক্ষার্থীদের রেকর্ড পোড়ানোর রিপোর্ট প্রকাশের কয়েক দিন পর এসেছে। সেই রেকর্ডগুলো পোড়ানো হয়েছে সেগুলো মুছে ফেলার জন্য নয়, বরং শিক্ষার্থী এবং তাদের পরিবারকে রক্ষা করার জন্য।