আইন কিংবা জাতিসংঘকে বোঝে না আমেরিকা: জারিফ

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, আমেরিকা অবশ্যই আইন এবং জাতিসংঘকে বোঝে না। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ প্রশ্নে তিনবার আমেরিকা পরাজিত হওয়ার পর জাওয়াদ জারিফ এ কথা বললেন।

ইরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব নিরাপত্তা পরিষদে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর আমেরিকা আবারো বলেছে, ইরানের সঙ্গে যারা লেনদেন করবে তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

গতকাল জাওয়াদ জারিফ তার টুইটার পেইজে দেয়া এক পোস্টে বলেন, “জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন প্রস্তাব তিনবার প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর আমেরিকা এখনো বলছে ইরানের সঙ্গে লেনদেনকারী যেকোনো দেশ এবং প্রতিষ্ঠানকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হবে। আসলে আমেরিকা আইন এবং জাতিসংঘকে বোঝে না।”

জারিফ বলেন, ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর আমেরিকা এখন আর এ সমঝোতার কোনো পক্ষ নয়। টুইটার পোস্টে এ সম্পর্কে তিনি বলেন, আমেরিকা পরমাণু সমঝোতাকে ডিভোর্স দিয়েছে। ম্যারেজ সার্টিফিকেটে এখন আমেরিকার নাম প্রত্যাশা করা অযৌক্তিক।

জাতিসংঘে নিযুক্ত আমেরিকার রাষ্ট্রদূত কেলি ক্র্যাফট সৌদি আরবের টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, আমেরিকা এখনো ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রক্রিয়ায় রয়েছে। কেলি ক্র্যাফটের বক্তব্যের সমালোচনা করেন জাওয়াদ জারিফ।

এর আগে গত ২৫ আগস্ট জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বর্তমান সভাপতি ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের মার্কিন প্রস্তাব নাকচ করে দেন। আমেরিকা প্রস্তাব উত্থাপন করলেও তার মিত্ররা কেউই এতে সাড়া দেয় নি। ফলে আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞাসহ সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালে ব্যর্থ হয়েছে।